Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Sunday, 26 September 2021

তৃণমূল–বিজেপি সংঘর্ষ, চললো গুলি, দুপক্ষের জখম ৫

 

Trinamool-BJP-clash

সমকালীন প্রতিবেদন ‌: বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠলো নদীয়ার হাঁসখালি থানার কৈখালী এলাকা। দুই গোষ্ঠীর মধ্যেকার এই সংঘর্ষের ঘটনায় গুলি চললো। এই ঘটনায় দুপক্ষের ৫ জন জখম হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে সবাই গুলিতে জখম হয়েছেন কি না, তা এখনও স্পষ্ট নয়। সবুজ সাথী প্রকল্পের সাইকেল চুরি করে বিক্রি করা হচ্ছিল– এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে এই গোলমালের সূত্রপাত। 

তৃণমূলের পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছে যে, ওই এলাকার বিজেপি কর্মী তথা একটি স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রাজ্য সরকারের সবুজ সাথী প্রকল্পের সাইকেল লুকিয়ে বেআইনীভাবে বিক্রি করছিলেন। সেই খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন তৃণমূল কর্মীরা। মোবাইলে সেই ছবিও তুলে রাখেন তারা। 

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এরপর সেখানে উত্তেজনা তৈরি হয়। খবর ছড়িয়ে পরতে সেখানে দুই রাজনৈতিক দলের কর্মীরাই হাজির হন। উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের মাঝেই হঠাৎ করে সেখানে গুলি চলতে শুরু করে। সংঘর্ষের ঘটনায় জখম হয়েছেন ৫ জন। তবে সবাই গুলিতে জখম হয়েছে কি না, তা স্পষ্ট নয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশকে দেখে উত্তেজনা চরমে ওঠে।  

এদিকে, জখমদের চিকিৎসার জন্য নদীয়ার শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। দলের আহত কর্মীদের দেখতে দুপক্ষের লোকজনই হাসপাতালে পৌঁছান। সেখানে আর এক প্রস্থ উত্তেজনা তৈরি হয়। জখমদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁকে পরে কলকাতার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হ‌য়েছে।  

এদিনের ঘটনা সম্পর্কে তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি সমীর পোদ্দার অভিযোগ করেন, 'বিজেপির এক শিক্ষক নেতা একটি স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে রাজ্য সরকারের সবুজ সাথী প্রকল্পের সাইকেল স্কুল থেকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে গিয়ে তা ২০০ থেকে ৩০০ টাকার বিনিময়ে বিক্রি করছিলেন। সেই খবর পেয়ে আমাদের দলের কর্মীরা তাঁকে হাতেনাতে ধরে ফেলায় বিজেপি কর্মীরা আমাদের কর্মীদের উপর হামলা চালায়।'‌ 

এদিন শক্তিনগর হাসপাতাল চত্বরে দাঁড়িয়ে নিজের অভিযোগের সমর্থনে মোবাইলে ছবিও দেখান সমীর পোদ্দার। যদিও তৃণমূলের এই অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপির পাল্টা দাবি, তৃণমূলই মিথ্যা অভিযোগ তুলে এদিন গোলমাল পাকায়। এই গোলমালকে ঘিরে এলাকায় উত্তেজনা তৈরি হওয়ায় এলাকায় পুলিশি টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।



No comments:

Post a Comment