Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Tuesday, 28 September 2021

‌আমেরিকার কাছ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী পেলেন অমূল্য উপহার

The-Prime-Minister-received-an-invaluable-gift

দেবাশীষ গোস্বামী : ‌ভারত থেকে বিভিন্ন সময় চোরা পথে বিদেশে পাচার হয়ে যাওয়া পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন আমেরিকার কাছ থেকে উপহার হিসেবে ফেরত পেল ভারত। সম্প্রতি আমেরিকা সফরে গিয়ে সেদেশের পক্ষ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর হাতে উপহার হিসেবে এই অমূল্য সম্পদগুলি তুলে দেয় সেদেশের সরকার। এমন উপহার পেয়ে আমেরিকার কাছে কৃতজ্ঞ ভারত সরকার। 


২২ সেপ্টেম্বর থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আমেরিকা সফর করেন। সেখানে তিনি বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক, ত্রিপাক্ষিক সহ একাধিক বৈঠকে যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রী মোদী আমেরিকার ঐতিহ্যবাহী জেনারেল অ্যাসেম্বলিতে বক্তৃতাও করেন। সেখানে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সংবাদ মাধ্যমে এইতিমধ্যেই এইসব খবর প্রকাশিত হয়েছে। 


তবে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর এই সফর সফল না ব্যর্থ, তা সময়ই বলবে। কিন্তু এই সফরে ভারতের সংস্কৃতি ও ইতিহাসপ্রেমী মানুষদের কাছে একটা সুখবর লুকিয়ে আছে। খবরটা হলো,   আমাদের দেশ থেকে বিভিন্ন সময়ে চোরা পথে পাচার হয়ে যাওয়া মূল্যবান পুরাকীর্তি উদ্ধার করে তা ভারতের প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দিয়েছে আমেরিকা সরকার। 


এমন ১৫৭ টা বিভিন্ন সম‌য়কালের প্রাচীন শিল্পকর্ম ও পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন উপহার হিসেবে ফিরিয়ে দেওয়ার ঘটনা ভারতের জন্য যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। যার পুরাতাত্ত্বিক মূল্য অসীম। এই উপহারের মধ্যে আছে বিভিন্ন ধরনের ধাতব ও পাথরের সামগ্রী। হিন্দুদের অনেক দেবদেবীর ব্রোঞ্জের মূর্তিও এই তালিকায় রয়েছে। 


এছাড়াও এর মধ্যে আছে জৈন ও বৌদ্ধদের অনেক শিল্পকর্ম। ভারতের পুরাতত্ত্ব বিভাগ অনেকদিন ধরেই চোরাচালান রোধে নানাবিধ ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছে। এরই অংশ হিসেবে ভারত ও আমেরিকার মধ্যে চোরাচালান বন্ধের জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। সেই চুক্তির অংশ হিসেবেও এই পুরাতাত্ত্বিক জিনিসগুলি ফেরত দেওয়া হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।


প্রাচীন ভারতের অজস্র এই ধরনের পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন বিভিন্ন সময়ে আর্ন্তজাতিক পাচারচক্রের হাত ধরে চোরা পথে বিভিন্ন দেশে পাচার হয়ে যায়। আর্ন্তজাতিক বাজারে এই ধরনের পুরাতাত্ত্বিক দ্রব্যের মূল্য অনেক। এখনও এই পাচারচক্র সক্রিয় রয়েছে। ভারত সরকার যত বেশী এই ধরণের চুক্তি বিভিন্ন দেশের সঙ্গে করবে, ততোই তা দেশের পক্ষে উপযোগী বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।




No comments:

Post a Comment