Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Friday, 17 September 2021

একদিনের রাজাকে দেখতে এখনও ভিড় জমান বহু মানুষ

 ‌

One-day-king

শম্পা গুপ্ত : রাজা, রাজত্ব, রাজ সিংহাসন– এসবই এখন ইতিহাসের পাতায় সীমাবদ্ধ। তারমধ্যেও ট্রাডিশন ধরে রাখতে একদিনের 'রাজা'‌র আগমন ঘটে। বিশ্বকর্মা পুজোর দিন প্রতি বছর ছাতা পরবে পুরুলিয়া ১ নং ব্লকের চাকলতোড় গ্রামে এই রাজাকে দেখতে পাওয়া যায়। একদিনের সেই রাজাকে দেখতে পুরুলিয়া জেলার টামনা থানার চাকলতোড় গ্রামের মাঠে এখনও ভিড় জমান দূরদূরান্তের বহু মানুষ। 

ইতিহাস অনুযায়ী, পঞ্চকোট রাজবংশে কুমার শত্রুঘ্ন নামে এক রাজা ছিলেন। সেই সময় তাঁর সঙ্গে একবার জঙ্গলমহলের রাজা ইন্দ্রনারায়ন সিং এর যুদ্ধ বাধে। গ্রামের এক মাঠে সেই যুদ্ধে  আদিবাসীরা ইন্দ্রনারায়নের সেনাবাহিনীতে অংশ নেন। সেই যুদ্ধে অবশ্য ইন্দ্রনারায়ন পরাজিত হন। এরফলে ইন্দ্রনারায়নের সৈন্যরা বিভ্রান্ত হয়ে পড়েন। এই পরিস্থিতিতে কুমার শত্রুঘ্ন ঘোষনা করেন যে, ইন্দ্রনারায়নের পক্ষের সাধারণ আদিবাসী সেনাদের সঙ্গে তাঁর কোনও বিরোধ নেই। তখন শান্তির বার্তা দিতে ছাতা মেলে ধরা হয়। 

সেই ঘটনার পর থেকে পুরুলিয়া জেলার সাধারণ মানুষের বিশ্বাস, একদিনের রাজাকে দেখলে সারা বছর ভালো কাটবে। আর তাই প্রায় সাড়ে তিনশো বছর আগে সূচিত হওয়া এই পরব এখনও পালিত হয়ে আসছে। এই পরবকে স্থানীয়ভাবে ছাতা তোলা উৎসবও বলা হয়। প্রতি বছর বিশ্বকর্মা পুজোর দিন বিকেলে বিভিন্ন গ্রাম সহ পুরুলিয়া শহরের মানুষ ভিড় জমান এই চাকলতোড় গ্রামে।

একসময় রাজবাড়ি থেকে রাজ পরিবারের সদস্য পালকিতে চড়ে এই মাঠে উপস্থিত হতেন। বর্তমানে রাজ পরিবারের বর্তমান সদস্য অমিতলাল সিংদেও মাথায় পাগড়ি, কোমরে তলোয়ার, গায়ে রাজ পোষাকে সজ্জিত হয়ে গাড়িতে চড়ে, ৪০ ফুটের ছাতা তুলে, সাদা রুমাল উড়িয়ে যুদ্ধ বিরতির ঘোষনা করেন। এবছরও তাই করলেন।

একদিনের এই রাজাকে দেখতে এখনও ভিড় জমান শয়ে শয়ে মানুষ। এই উৎসবকে ঘিরে চাকলতোড় গ্রামের মাঠে মেলা বসে। ধামসা, মাদল আর ঝুমুর নাচের তালে সারা রাত ধরে উৎসবে মেতে ওঠেন আদিবাসী মানুষেরা। ভোরের আলো ফুটতেই উৎসবের সমাপ্তি ঘটে। এই রাতেই আদিবাসী যুবক–যুবতী তাঁদের জীবন সঙ্গীও নির্বাচিত করে নেন। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে গত সদুবছর ধরে এইধরনের প্রথা বন্ধ রয়েছে। ছাতা তোলার পরপরই উৎসবের সমাপ্তি ঘটানো হচ্ছে।


No comments:

Post a Comment