Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Sunday, 26 December 2021

বনগাঁয় বিজেপির কর্মী সম্মেলনে দলের নেতাদের হাতে আক্রান্ত দলীয় নেতৃত্ব

 

Party-leadership-attacked-by-party-leaders

সমকালীন প্রতিবেদন : ‌দলের কর্মী সম্মেলন চলাকালীন দলীয় নেতৃত্বের হাতে আক্রান্ত হলেন বিজেপির একাধিক পদাধিকারী। আহতদের মধ্যে মহিলা নেত্রীও রয়েছেন। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রবিবার বিকেলে বনগাঁর কালুপুর এলাকার এই ঘটনাকে কেন্দ্রে করে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। অভিযোগ, বিজেপি বিধায়কের উপস্থিতিতেই দলের নেতাদের হাতে আক্রান্ত হয়েছে দলের অন্য নেতৃত্বরা। 


রবিবার বিকেলে উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর কালুপুর এলাকায় বিজেপির একটি কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেই সম্মেলনে ডাক পান নি বিজেপির জেলা কমিটির সম্পাদক তথা বনগাঁ পঞ্চায়েত সমিতির বিজেপি সদস্য অর্ণব সুর এবং তাঁর স্ত্রী, বনগাঁ ব্লকের কালুপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরোধী দলনেত্রী (‌বিজেপি)‌লতিকা সুর। তাঁদের অভিযোগ, 'দলের পক্ষ থেকে তাঁদেরকে কোনও কর্মসূচিতেই ডাকা হচ্ছে না। কেন এমন আচরণ করা হচ্ছে, সে ব্যাপারে জানতে চাইতে এদিন নিজে থেকে কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত হতেই দলের মন্ডল সভাপতি বিশ্বজিৎ ঘোষ এবং অন্যান্য কর্মীরা আমাদের উপর হামলা চালায়।'‌ 


বেধড়র মারধোরের পাশাপাশি তাঁদেরকে লাথি মেরে সিঁড়ি থেকে নিচে ফেলে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় অর্ণব এবং লতিকা সুর সহ ৬–৭ জন বিজেপি কর্মী আহত হন। তাঁদের মধ্যে অর্ণব এবং লতিকার আঘাত গুরুতব। তাঁদেরকে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্রে করে‌ ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। দলীয় কর্মীদের হাতেই দলের পদাধিকারীরা আক্রান্ত হওয়ায় বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ফের প্রকাশ্যে চলে এলো।


আক্রান্তদের অভিযোগ, বনগাঁ দক্ষীন বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক স্বপন মজুমদারের উপস্থিতিতেই এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা তাঁরই অনুগামী হিসেবে পরিচিত। যদিও অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে উল্লেখ করে বিজেপি বিধায়ক স্বপন মজুমদার এব্যাপারে জানান, 'মারধোরের ঘটনা আমার জানা নেই। তবে শুনেছি, অর্ণব এবং তার স্ত্রী ইদানিং গোপনে তৃণমূলের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে। আর তাতে এলাকার বিজেপি নেতৃত্ব তাদের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে দলের কোনও কর্মসূচিতে ডাকছে না। তারা তৃণমূলে যোগ দেবে বলে আমাদের ধারনা'‌




No comments:

Post a Comment