Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Monday, 16 August 2021

৭ সংগঠনের আন্দোলনে বানিজ্য বন্ধ পেট্রাপোলে, চলছে পথসভা, বিক্ষোভ

 

Trade-closed-in-Petrapole

সমকালীন প্রতিবেদন : চেকিং এর নামে ট্রাকচালক, খালাসিদের হয়রানি সহ একাধিক অভিযোগ তুলে আন্দোলনে নামলেন আমদানি‌–রপ্তানি বাণিজ্যের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিক,মালিকদের একাধিক সংগঠন। গোটা দিন এই আন্দোলন চলবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। এর ফলে সোমবার পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে দু'দেশের মধ্যে আমদানি–রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকল। 

বনগাঁ গুডস ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক বুদ্ধদেব বিশ্বাস, অরুন সাহা জানান, 'ভারত থেকে বাংলাদেশেগামী পণ্যবাহী ট্রাকে তল্লাশির নামে এক প্রকার হয়রানি করছে‌ন বিএসএফ কর্মীরা। এর ফলে মার খাচ্ছে রপ্তানি বাণিজ্য।' সিআইটিইউ পরিচালিত পেট্রাপোল শ্রমিক সংগঠনের নেতা ধৃতিমান পালের অভিযোগ, 'চেকিং এর নামে বিএসএফ কর্মীরা ট্রাক কর্মীদের সঙ্গে অনৈতিক আচরণ করছেন‌। এর ফলে অযথা দেরি হচ্ছে রপ্তানি বাণিজ্যে। যার কারণে আগে যেখানে দৈনিক ভারত থেকে বাংলাদেশে গড়ে ৫০০ টি ট্রাক পণ্য নিয়ে বাংলাদেশে যেতে পারত, এখন তা ৩০০ তে নেমে এসেছে।' 

পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং এজেন্ট স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, 'ক্লিয়ারিং এজেন্টসহ আমদানি ও রপ্তানি বাণিজ্যের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের পরিচয়পত্র থাকা সত্ত্বেও তাদেরকে তল্লাশির নামে হয়রানি করা হচ্ছে‌। এছাড়া সেন্ট্রাল ওয়ারহাউজেং করপোরেশনের ভেতরে রাস্তার অবস্থা এতই খারাপ যে, প্রতিনিয়ত ট্রাকগুলি দুর্ঘটনাগ্রস্ত হয়ে পরছে। পার্কিং এলাকার পরিকাঠামো ভেঙে পড়েছে।' 

তিনি আরও বলেন, 'পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পণ্যবাহী ট্রাক যাওয়ার জন্য দুটি রেলগেট পরে। যার একটি খারাপ হয়ে যাওয়ার কারণে দীর্ঘ দিন ধরে বন্ধ হয়ে রয়েছে। একটি গেট দিয়ে ট্রাক যাওয়ার ফলে সময় বেশি লাগছে। ট্রাক দাঁড়িয়ে যাচ্ছে। ফলে রাতের দিকে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। ট্রাক মালিকরা সিডব্লিউসি কর্তৃপক্ষকে পার্কিং ফ্রি দিচ্ছেন। তাদের দায়িত্ব রেলগেট ঠিক করা এবং এ ব্যাপারে রেল কর্তৃপক্ষকে তদবির করা।' 

নিজেদের দাবির সমর্থনে সোমবার সকাল থেকে পেট্রাপোল সীমান্তে‌র তিন নম্বর গেটের কাছে পথসভা, বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু করেছেন আমদানি রপ্তানি বাণিজ্যের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিক–মালিক মিলিয়ে মোট সাতটি সংগঠনের নেতা, কর্মীরা। তাঁদের দাবি, চেকিং এর নামে বিএসএফের হয়রানি বন্ধ করতে হবে। চেকিং করার জন্য আধুনিক যন্ত্রের ব্যবস্থা করা হোক, যাতে কম সময়ের মধ্যে চেকিং এর পর্ব মেটানো যায়। রপ্তানি বাণিজ্যে গতি বাড়ে। 

নিজেদের দাবি পূরণের জন্য বারবার প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আবেদন জানালেও কাজ না হও‌য়ায় আজ তাঁরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছেন বলে জানান। এই আন্দোলনের ফলে এদিন সকাল থেকেই পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারত–বাংলাদেশের মধ্যে আমদানি–রপ্তানি বন্ধ থাকে।

No comments:

Post a Comment