Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Sunday, 18 July 2021

'ভিক্ষুক গ্রাম'‌ এ ভাসুক গরম ভাতের গন্ধ, চান বাসিন্দারা

'ভিক্ষুক গ্রাম'‌ এ ভাসুক গরম ভাতের গন্ধ, চান বাসিন্দারা

সোমনাথ মজুমদার : 'আমি ভিক্ষা করে ফিরতে ছিলাম গ্রামের পথে পথে...' না গ্রামের পথে পথে নয়৷ কখন ও ট্রেনে চেপে, কখনো বা বিভিন্ন এলাকায় ঘুড়ে ঘুড়ে ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবন যাপন করেন এই গ্রামের অধিকাংশ মানুষ। করোনা অতিমারি পরিস্থিতিতে করোনাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে রাজ্যজুড়ে জারি হয়েছে একাধিক বিধি নিষেধ। বন্ধ হয়েছে লোকাল ট্রেন চলাচল। ফলে চরম সমস্যায় পড়েছেন এই মানুষগুলি। দিন যেন আর চলছে না৷ রেলের চাকা ঘুরলে তবে দু-চার পয়সা রোজগার হয়। রেলের চাকা বন্ধ ,স্বাভাবিকভাবে একপ্রকার থেমে গেছে সংসারের চাকা৷ 

উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত পুরাতন বনগাঁর পারুইপাড়া এলাকা. এই এলাকার বেশিরভাগ মানুষই ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবন যাপন করেন. এলাকার বাসিন্দা এলোকেশী দলপতি৷ স্বামীর মৃত্যুর পর বাড়িতে একাই থাকেন বৃদ্ধা‌। বাড়ি বলতে ছোট্ট কুঁড়েঘর। যার ফাঁকফোকর দিয়ে অনায়াসেই রোদ-বৃষ্টির অবাধ বিচরণ। এলোকেশী জানালেন, ট্রেন বন্ধ হবার পর আর কাজে বেরোতে পারেন না। মাঝে কয়েকদিন শাকপাতা তুলে বিক্রি করেছেন। এখন তাও বন্ধ৷ কখনও এর ওর কাছ থেকে চেয়ে আধপেটা খাওয়া। কখনওবা না খেয়ে দিন কাটছে তাঁর।


 ছেলের মৃত্যুর পর বাপ মরা মেয়েকে নিয়ে একাই থাকতেন পদ্ম সরকার। ট্রেনে চেপে গোবরডাঙা, হাবরা প্রভৃতি এলাকায় কাজে যেতেন। ট্রেন বন্ধ, তাই এখন কাজও বন্ধ। স্বাভাবিকভাবেই উপার্যনও বন্ধ। আশেপাশের গ্রামেও গেছেন। কিন্তু সেখানে গেলে করোনার কথা বলে সাধারণ মানুষ মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। পদ্ম জানালেন, ছোট্ট নাতনিকে নিয়ে একপ্রকার না খেয়ে দিন কাটছে৷ 

এই গ্রামের আর এক বাসিন্দা পূর্ণিমা খাঁ। স্বামী সন্দীপের মৃত্যুর পর স্ত্রী পূর্ণিমা সংসার চালাতে না পেরে দুই সন্তানকে নিয়ে গ্রাম ছেড়েছেন। গ্রামবাসীরা জানালেন, স্বামীর মৃত্যুর পর পূর্ণিমা খাঁ এখন আশ্রয় নিয়েছেন আত্মীয়ের বাড়িতে। সব মিলিয়ে এক নিদারুন ছবি প্রায় গোটা গ্রাম জুড়ে। গ্রামবাসীদের শরীরী ভাষা যেন বুঝিয়ে দিচ্ছে তাদের জীবনযন্ত্রনার কাছে বড় আপেক্ষিক, অচেনা সেফ ডিসট্যান্স, হোম কোয়ারেন্টাইন শব্দগুলি৷ ট্রেন চলুক, স্বাভাবিক হোক সবকিছু। গ্রামের বাতাসে ভাসুক গরম ভাতের গন্ধ– এই আশাতেই দিন গুনছেন এই গ্রামের অসহায় মানুষগুলি।



No comments:

Post a Comment