Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Thursday, 22 July 2021

কতবার প্রেমে পড়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প ? (‌দ্বিতীয় তথা শেষ পর্ব)‌

 

How many times has Donald Trump fallen in love?

সমকালীন প্রতিবেদন : মার্লা ম্যাপলসের সঙ্গে ডোনাল্ডের দেখা হয় প্রথম স্ত্রী থাকা অবস্থাতেই। ১৯৯৩ সালে ট্রাম্প দ্বিতীয় বিয়ে করেন। মেলানিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক আগে থেকেই। তাঁকে বিয়ে করেন ২০০৫ সালে। ২০০১ সাল থেকে দু'বছর কারা ইয়াং নামে এক মডেলের সঙ্গে ডেট করেছেন ট্রাম্প। ১৯৯৫ সালে কিছুদিনের জন্য তিনি ডেট করেন কাইলি ব্যাক্স নামে আর এক মডেলের সঙ্গে। রোয়ানি ব্রিউয়ার লাইন নামে এক মডেলের সঙ্গেও ট্রাম্পের সম্পর্ক নিয়ে চর্চা রয়েছে। পুল পার্টিতে পরিচয় হয়েছিল তাঁদের। গ্যাব্রিয়েলা সাবাতিনি নামে এক টেনিস খেলোয়াড়ের সঙ্গেও ট্রাম্প ১৯৮৯ সালে ডেট করেন বলে শোনা যায়। ১৯৯৭ সালে আলসন জিয়ানিনি নামে ২৭ বছরের এক মডেলের সঙ্গেও তাঁর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। 

ষাটের দশকের শেষ দিকে অভিনেত্রী কেন্ডিস বার্গেনের সঙ্গে ডেট করতেন ট্রাম্প। টিভি তারকা আনা নিকোল স্মিথের সঙ্গেও ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কথা প্রচার হয়েছে সংবাদমাধ্যমে। মডেল মেলানিয়াকে প্রেম প্রস্তাব দিতেও সময় নষ্ট করেননি ডোনাল্ড। মুখ ফুটে বলে ফেলেছেন মনের কথা। ভাল লাগার কথা। চান টেলিফোন নম্বর। তবে প্রেম প্রস্তাব পেয়েই কিন্তু মেলানিয়া ডগমগ হয়ে যাননি। তিনি ট্রাম্পকে নিজের ফোন নম্বর দেননি। বরং ট্রাম্পের টেলিফোন নম্বর চেয়ে নেন। আসলে বাজিয়ে দেখতে চেয়েছিলেন মেলানিয়া। কিন্তু বেশিদিন অপেক্ষা করতে পারেননি দু'জনই। 

ক্যারিবিয়ানে ফটোশ্যুট থেকে ফিরেই মেলানিয়া, ট্রাম্পের প্রেমে পড়েন। ১৯৯৬ সালের মিস ইউনিভার্স অ্যালিসিয়া মাশাদো খানিকটা মুটিয়ে গিয়েছিলেন। তা নিয়ে সবার সামনেই তাঁকে কথা শোনাতে ছাড়েননি ট্রাম্প। ডোনাল্ডের অফিসে অনেক মেয়ে চাকরি করতেন। ট্রাম্প তাঁদের নিজের মতো নাম দিতেন। সেই নামেই ডাকতেন। অনেক মেয়েই তা পছন্দ করতেন না। কিন্তু সেসবে মোটেই তোয়াক্কা করতেন না ট্রাম্প। ২০০৫ সালে ট্রাম্পের একটি ইন্টারভিউয়ের ভিডিও প্রকাশ করে ওয়াশিংটন পোস্ট। তাতে দেখা যায়, ট্রাম্প অভিনেত্রী আরিয়ানি জাকার ও উপস্থাপক বিলি বুশের সঙ্গে হাঁটতে হাঁটতে কথা বলছেন। কিছুক্ষণ পরেই তিনজনের মাঝে এসে দু'হাতে দু'জনের হাত চেপে ধরেন। রেডিও জকি হাওয়ার্ড স্টার্নের সঙ্গে নিজের যৌনতা মাখা জীবন নিয়ে কথা বলতে মোটেই সঙ্কোচ বোধ করেননি ডোনাল্ড। স্বীকার করে নিয়েছেন, ১৪ বছর বয়সেই তিনি কৌমার্য হারান।


আক্ষরিক অর্থেই ট্রাম্পের বিছানা রামধনু। ১৯৮০ দশকের কথা। জেসিকা লিডস তখন একটি পেপার কোম্পানিতে চাকরি করতেন। বিমানে নিউ ইয়র্ক যাচ্ছিলেন। পাশের সিটে ছিলেন ট্রাম্প। আচমকা তাঁর ঘনিষ্ঠ হওয়ার চেষ্টা করেন ডোনাল্ড, নিউ ইয়র্ক টাইমসকে এমনটাই দাবি করেন জেসিকা। ২০০৫ সালে ট্রাম্পের নজরে আসেন ম্যানহাটনে কর্মরত একজন রিসেপশনিস্ট। তিনি তখন ২২ বছরের যুবতী। লিফটের ভিতর দু'জনের দেখা হয়। মুহূর্তেই হ্যান্ডসেক থেকে চুমু।

মার্কিন টেলিভিশনে একটি রিয়েলিটি শো চালাতেন ট্রাম্প। সেই শোয়ে আসতেন নামী মডেলরা। তাঁদের অনেকেরই ঘনিষ্ঠ হয়েছেন ডোনাল্ড। পরে সেই সব মহিলারা বোমা ফাটিয়েছেন। ক্যাথি হেলার নামে এক মহিলা ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের কাছে অভিযোগে জানান, ১৯৯৭ সালে তিনি পরিবার নিয়ে ট্রাম্পের মালিকানাধীন মার-আ-লাগো এস্টেটে বেড়াতে গিয়েছিলেন। সেখানে ট্রাম্প তাঁর সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটাতে জোর করেন। নাতাশা স্টয়নফ নামে এক সাংবাদিক দাবি করেছেন, পাম বিচের বাড়িতে ট্রাম্প ও মেলানিয়ার সাক্ষাৎকার নিতে গিয়ে তিনিও ডোনাল্ডের শিকার হন। রিয়েলিটি শোর প্রতিযোগী জেনিফার মারফি বলেছেন, ট্রাম্পের নজর থেকে বাদ যাননি তিনিও। যদিও এসব নিয়ে ট্রাম্প কোনওদিনই কোনও মন্তব্য করেননি। বরং বলেছেন, তিনি মেয়েদের অত্যন্ত সম্মানের চোখে দেখেন। সেকথা মেয়েরা নিজেরাই বলবে। প্রাক্তন পর্ন তারকা স্টোর্মি ডেনিয়েলস দাবি করেছেন, ট্রাম্পের সঙ্গে তাঁরও সম্পর্ক ছিল।

বিভিন্ন সময় সংবাদমাধ্যমে উঠে এসেছে, কম করে আটজনের সঙ্গে ডেট করেছেন ট্রাম্প। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন কারা ইয়ং, কাইলি ব্যাকস, রাওয়ানে ব্রিওয়ার লেন, গ্যাব্রিয়েলা সাবাতিনি, আলিসন গিয়ানিনি, ক্যান্ডিস বার্গেন, এনা নিকোল স্মিথ ও কার্লা ব্রুনি। তবে শুধু ট্রাম্প নন, তাঁর স্ত্রীরাও কম যান না। ১৯৯৩ সালে মার্লা ম্যাপলসকে বিয়ে করেন ট্রাম্প। তখন ডোনাল্ডের দেহরক্ষী ছিলেন স্পেনসার ওয়াগনার। শোনা যায়, স্পেনসারের প্রতি আকৃষ্ট হন মার্লা। ফ্লোরিডার বিচে দু'জনকে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখাও যায়। দু'জনেই সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেন। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যে চাকরি যায় স্পেনসারের। এক বছর বাদে আলাদা হন মার্লা ও ট্রাম্প। তিন বছরের মাথায় তাঁদের ডিভোর্স হয়ে যায়। এমনও অভিযোগ রয়েছে, ট্রাম্প অতীতে একাধিকবার এমন পার্টি দিয়েছেন, যেখানে নারীসঙ্গ থেকে মাদক, হাত বাড়ালেই পাওয়া যেত সবই।

No comments:

Post a Comment