Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Tuesday, 23 November 2021

মহকুমা শাসকের উদ্যোগে অপুষ্টিতে ভোগা শিশুর চিকিৎসার ব্যবস্থা

 ‌

Treatment-of-malnourished-children

শম্পা গুপ্ত : অপুষ্টিজনিত রোগে আক্রান্ত ‌হয়েছে একটি শিশু। ফোনে এই ছবি দেখার পর ওই শিশুর বাড়িতে সশরীরে হাজির হলেন মহকুমা শাসক। শিশুটির চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেন। শিশুর পাশাপাশি তার মায়ের পুষ্টিযুক্ত খাবার পাবার ব্যবস্থা করা হল। পুরুলিয়া জেলার সাঁতুড়ি ব্লকের ঢেঁকশিলা পঞ্চায়েতের মালপাড়া এলাকার ঘটনা। আর এই মানবিক কাজের সাক্ষী রইলেন রঘুনাথপুর মহকুমা শাসক এবং স্থানী ব্লক প্রশাসন।


জানা গেছে, মালপাড়া এলাকার বাসিন্দা অরুপ মালের তিনমাসের পুত্র সন্তান অপুষ্টিজনিত রোগে আক্রান্ত। আক্রান্ত শিশুর ছবি বিশেষ সূত্র মারফত রঘুনাথপুরের মহকুমা শাসক প্রিয়দর্শিনী ভট্টাচার্যের মোবাইলে এসে পৌঁছায়। সেই ছবি এবং খবর জানার পরই আ্যম্বুলেন্স নিয়ে মঙ্গলবার সকালে অরুপ মালের বাড়িতে পৌঁছান মহকুমা শাসক। সঙ্গে নিয়ে যান সাঁতুড়ি ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক আশীষ বিশ্বকর্মা এবং অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীরা। 


মহকুমা শাসক ওই বাড়িতে পৌঁছে শিশুটির পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বিস্তারিত কথা বলেন এবং সংসারের হাল জানতে চান। ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক নিজে ওই শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন। তিনি বুঝতে পারেন, অপুষ্টিজনিত কারণে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পরেছে। এব্যাপারে পরিবারকে প্রশাসনিক কর্তারা জানান, সরকারিভাবে নানা ব্যবস্থা রাখা আছে। সেগুলি তাঁরা সময়মতো খোঁজ নিয়ে তার সুযোগ নিলে এমন পরিস্থিতি তৈরি হতো না।


এব্যাপারে মহকুমা শাসক প্রিয়দর্শিনী ভট্টাচার্য জানান, '‌একটি বিশেষ সূত্র মারফত এই শিশুটির ছবি আমার মোবাইলে শেয়ার হয়। সেটি দেখার পর তখনই এখানে আসার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি। এখানে এসে দেখলাম বাচ্চার মা নিজেই একজন অল্পবয়সী মা। তার বয়স সাকুল্যে   ২০ বছর। তার নিজেরই বাচ্চার মা হবার মতো শারীরিক সক্ষমতা নেই। বাচ্চার বাবাও এব্যাপারে উদাসীন। সমাজের সকলের কাছে আবেদন, সঠিক সময় না হলে বিশেষ করে শারীরিকভাবে সক্ষম না হলে কোনও বিয়ে দেওয়া কিম্বা বাচ্চার মা হতে গেলে মা এবং বাচ্চা দুজনেরই সমস্যা।' 


মহকুমা শাসকের পরামর্শ, সরকারি উদ্যোগে সমস্ত অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে বাচ্চাদের এবং গর্ভবতী মহিলাদের জন্য বিনামূল্যে পুষ্টিকর খাবার দেবার ব্যবস্থা আছে। সেখানে তাদেরকে যেতে হবে এবং এই সরকারি সুবিধা গ্রহন করতে হবে। মহকুমা শাসকের উদ্যোগে এদিন এই শিশুটিকে এদিনই পুরুলিয়া দেবেন মাহাত সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে ওই শিশু এবং তার মা  দুজনকেই পুষ্টি পুনর্বাসন কেন্দ্রে ১৫ দিনের জন্য পাঠানো হবে বলে মহকুমা শাসক জানান।সাঁতুড়ি ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক আশীষ বিশ্বকর্মা জানান, 'মহকুমা শাসক আজ যে শিশুটির জন্য ছুটে এসেছেন, ‌তা দৃষ্টান্তমূলক। গর্ভবতী মহিলা পুষ্টিকর খাবার না খেলে তিনি যে শিশুর জন্ম দেবেন, সেও অপুষ্টিতে আক্রান্ত হবে।' 

No comments:

Post a Comment