Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Thursday, 19 August 2021

বিশেষ শিক্ষা পদ্ধতির আবিষ্কর্তা প্রধান শিক্ষক রাষ্ট্রপতি পুরস্কার পাচ্ছেন

Presidential-award-to-head-teacher

সমকালীন প্রতিবেদন : করোনাকালে স্কুলের পড়ুয়াদের ঘরে বসে পড়াশোনা করার অভিনব পন্থা আবিষ্কার করার পাশাপাশি বিদ্যালয়ে পড়াশোনার পরিবেশ বদলের স্বীকৃতি হিসেবে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার পাচ্ছেন এক প্রধান শিক্ষক। হরিস্বামী দাস নামের এই প্রধান শিক্ষক মালদা জেলার শোভানগর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক।

এবারেই প্রথম নয়, স্কুলের শিক্ষার প্রসারে যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে এই প্রধান শিক্ষকের। ইতিমধ্যেই তাঁর প্রচেষ্টায় ছবি এঁকে স্কুলের পরিবেশ বদলে দেওয়া, প্ল্যাস্টিক দিয়ে ইট তৈরি করা, জল সংরক্ষণের পদ্ধতি আবিষ্কার করার মতো কাজ করে নজর কেড়েছেন প্রধান শিক্ষক হরিস্বামী দাস। তারই সূত্র ধরে ইতিমধ্যেই তাঁর স্কুল ২০১৫ সালে নির্মল বিদ্যালয়, ২০১৮ সালে শিশুমিত্র এবং ২০১৯ সালে যামিনী রায় পুরস্কার পেয়েছে। 

আর এবারে সেই তালিকায় নতুন সংযোজন রাষ্ট্রপতি পুরস্কার। যদিও সেটি ব্যক্তিগতভাবে পাচ্ছেন প্রধান শিক্ষক। বুধবারই এই পুরস্কারপ্রাপ্তির খবর বিকাশ ভবন থেকে মালদা জেলা প্রশাসন এবং সেখান থেকে খবর পৌঁছায় পুরস্কারের জন্য মনোনীত প্রধান শিক্ষক হরিস্বামী দাসের কাছে। এই খবরে স্বাভাবিকভাবেই তাঁর পাশাপাশি তাঁর স্কুলের অন্যান্য সহ শিক্ষক, শিক্ষাকর্মী, পড়ুয়ারা উচ্ছসিত। খুশি মালদা জেলার মানুষেরাও। কারণ, এবছর এই রাজ্য থেকে তিনি একমাত্র শিক্ষক, যিনি এই পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন।

স্কুল সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে স্কুল বন্ধ। স্বাভাবিকভাবেই ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে পড়ুয়াদের ছাত্রজীবন। এই অবস্থায় পড়ুয়ারা যাদে বাড়িতে বা যেকোনও স্থানে বসেই শুধুমাত্র মোবাইলের মাধ্যমে বইয়ের পাতা খুলে পড়াশোনার কাজ চালাতে পারে, তারজন্য একটি বিশেষ কোডিং ব্যবস্থা আবিষ্কার করেছেন তিনি। যাত নাম দেওয়া হয়েছে 'হাইব্রিড লার্নিং'। 


নতুন এই শিক্ষা পদ্ধতির বিষয়টি কেন্দ্রীয় শিক্ষা দপ্তরে পাঠানোর পর সেখানে বিষয়টি সমাদ্রিত হয়। আর তারই প্রেক্ষিতে এই পুরস্কারপ্রাপ্তি বলে মনে করা হচ্ছে।করোনা পরিস্থিতির কারণে এবছরও শশরীরে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার আনার সুযোগ থাকছে না। ৫ সেপ্টেম্বর শিক্ষক দিবসের দিন জেলা প্রশাসনিক ভবনে ভার্চুয়ালি এই পুরস্কার গ্রহন করবেন প্রধান শিক্ষক হরিস্বামী দাস।




No comments:

Post a Comment