Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Tuesday, 31 August 2021

বনগাঁ ব্লকের চৌবেড়িয়া ২ পঞ্চায়েতের অনাস্থা ভোটে স্থগিতাদেশ হাইকোর্টের

High-Court-suspends-no-confidence-vote

সমকালীন প্রতিবেদন : বনগাঁ ব্লকের চৌবেড়িয়া ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের অনাস্থা ভোটের উপর স্থগিতাদেশ জারি করল কলকাতা হাইকোর্ট। ফলে মঙ্গলবার এই পঞ্চায়েতে অনাস্থা ভোটে তৃণমূল জয়ী হলেও আপাতত তা কার্যকরী হচ্ছে না। এব্যাপারে তৃণমূল নতুন করে আদালতের দ্বারস্থ হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

High-Court-suspends-no-confidence-vote

অন্যদিকে, এদিন এই ভোটাভুটিকে কেন্দ্র করে ওই এলাকায় পুলিশ এবং বিজেপি নেতৃত্ব বিতন্ডায় জড়িয়ে পরে। এলাকার বিজেপি বিধায়ককে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূল কর্মীরা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায় ওই এলাকায়।

বনগাঁর চৌবেড়িয়া ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট আসন সংখ্যা ১৫। ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি ৮ টি এবং তৃণমূল ৭ টি আসন পায়। পঞ্চায়েতের ক্ষমতা দখল করে বিজেপি। পরবর্তীতে তৃণমূল কংগ্রেসের এক পঞ্চায়েত সদস্য মারা যান। ফলে তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত সদস্য সংখ্যা দাঁড়ায় ৬ জন, বিজেপির ৮ জন। 

দিন কয়েক আগে বিজেপি পরিচালিত এই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনেন কয়েকজন সদস্য। তারই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার ভোটাভুটির আয়োজন করা হয়। মিটিং শুরু হতেই ৪ জন বিজেপি পঞ্চায়েত সদস্য হাইকোর্টের নির্দেশের কথা জানিয়ে পঞ্চায়েত থেকে ফিরে যান। 

এই বিষয়ে সরকারি আধিকারিক অনাস্থা ভোটাভুটির পরে জানান, ৮ জন ভোটাভুটিতে অংশগ্রহণ করে ৮ জনই অনাস্থার পক্ষে স্বাক্ষর করেছেন। বিজেপি দাবি করে, হাইকোর্টের স্থগিতাদেশের পরেও গায়ের জোরে অনাস্থার উপর ভোটাভুটি করেছে তৃণমূল। যদিও তখনও পর্যন্ত হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ প্রশাসনের কর্তাদের হাতে এসে পৌঁছায় নি। পরে তা হাতে পায় প্রশাসন। 

এদিকে, অনাস্থার ভোটাভুটিকে ঘিরে এদিন ব্যাপক পুলিশি ব্যবস্থা করা হয়। পঞ্চায়েত দপ্তর থেকে ১০০ মিটার পর্যন্ত এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। পুলিশের দাবি, ১৪৪ ধারা লঙ্ঘন করে এলাকার বিজেপি পার্টি অফিসের বাইরে বসে মদ্যপান করে বাজি ফাটাচ্ছিল বিজেপির কিছু সমর্থক। তাদের মধ্যে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করে আনার সময় বিজেপির যুব মোর্চার জেলা সম্পাদক সুবিনয় ঘোষ পুলিশের কাজে বাধা সৃষ্টি করে ধৃতদের ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন সুবিনয়। তাই তাঁকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করে। পুলিশ তাকে গাড়িতে তোলার সময়  ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। 

সুবিনয়কে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ, স্লোগান দেন বিজেপির বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি মনস্পতি দেব সহ অন্যান্য বিজেপি নেতা, কর্মীরা। গোপালনগর থানার পুলিশ আধিকারিকের সঙ্গে মনস্পতির বাকবিতন্ডা হয়। এর পাশাপাশি, বনগাঁ দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক স্বপন মজুমদার ওই এলাকায় গেলে তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা।



No comments:

Post a Comment