Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Tuesday, 20 July 2021

পাওয়ারলুমের মাধ্যমে টেক্সটাইল হাব ‌অশোকনগরে

 

পাওয়ারলুমের মাধ্যমে টেক্সটাইল হাব ‌অশোকনগরে

সমকালীন প্রতিবেদন : প্রায় এক যুগের বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকা উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরের কল্যাণী স্পিনিং মিলকে নতুন করে সাজিয়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। পুরনো স্পিনিং মিলকে অত্যাধুনিক ব্যবস্থার মধ্যে দিয়ে পাওয়ার লুমের মাধ্যমে এখানে টেক্সটাইল হাব তৈরি হবে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে এখানে উৎপাদন শুরুর লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে মঙ্গলবার স্পিনিং মিল এলাকা পরিদর্শন করলেন উত্তর ২৪ পরগনার জেলাশাসক সুমিত গুপ্তা, অশোকনগরের তৃণমূল বিধায়ক নারায়ন গোস্বামী সহ জেলার একাধিক সরকারি আধিকারিক।

পাওয়ারলুমের মাধ্যমে টেক্সটাইল হাব ‌অশোকনগরে

জানা গেছে, অশোকনগর স্টেশন সংলগ্ন  এলাকায় বেশ কয়েক বছর আগে রাজ্য সরকারের হ্যান্ডলুম বিভাগের পরিচালনায় কল্যাণী স্পিনিং মিলের দ্বিতীয় ইউনিট চালু হয়। প্রায় ৩৬ একর জমির উপর অবস্থিত এই স্পিনিং মিলে হ্যান্ডলুমের মাধ্যমে একসময় সুতো তৈরীর কাজ হতো। প্রচুর মানুষ এই মিলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। বিশেষ কিছু কারণে প্রায় এক যুগ আগে এই স্পিনিং মিলে উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। কর্মহীন হয়ে পড়েন বহু মানুষ।

এই স্পিনিং মিলকে নতুন করে কাজে লাগাতে উদ্যোগী হয় তৃণমূল পরিচালিত রাজ্য সরকার। বিধানসভা নির্বাচনের আগে ব্যারাকপুরে প্রশাসনিক বৈঠক মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করেন, অশোকনগরের বন্ধ থাকা স্পিনিং মিলটিকে হ্যান্ডলুমের জায়গায় পাওয়ারলুমে পরিণত করে সেখানে অত্যাধুনিক টেক্সটাইল হাব তৈরি করা হবে। সেই ঘোষণা অনুযায়ী ইতিমধ্যেই টেক্সটাইল হাব তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। 

এদিন এলাকা পরিদর্শনের পর অশোকনগরের বিধায়ক নারায়ন গোস্বামী বলেন, '‌মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে অত্যাধুনিক পাওয়ারলুম যন্ত্রের সাহায্যে এখানে নতুন করে সুতো তৈরীর কাজ শুরু হবে। বাইরের রাজ্যগুলিতে যেখানে বস্ত্র তৈরির কারখানা রয়েছে, অশোকনগরের এই পাওয়ারলুম থেকে উৎপাদিত সুতো বাইরের রাজ্যের সেই সব কারখানায় চলে যাবে। ইতিমধ্যেই গুজরাট, রাজস্থান, পাঞ্জাব প্রভৃতি রাজ্যের বেসরকারি উদ্যোগপতিরা এলাকা পরিদর্শন করে গেছেন। এই টেক্সটাইল হাব চালু হলে এখানে প্রচুর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। বদলে যাবে অশোকনগরের অর্থনীতিও।'

জেলাশাসক সুমিত গুপ্তা জানান, '‌অশোকনগরের এই নতুন টেক্সটাইল হাবে মোট সাতটি শেড তৈরি করা হবে। ইতিমধ্যেই প্রথমটি তৈরির কাজ শেষ হয়েছে। দ্বিতীয়টি তৈরীর কাজ শেষের মুখে। বাকি পাঁচটি শেড পরপর তৈরি হবে। এই টেক্সটাইল হাব চালু করার জন্য অত্যাধুনিক যন্ত্র আসবে। আগামী বছরের জানুয়ারি মাসের মধ্যেই এখানে উৎপাদন শুরুর চেষ্টা চালানো হচ্ছে।'‌

টেক্সটাইল হাবের পাশাপাশি অশোকনগর এলাকায় জুয়েলারি হাবও তৈরি হবে। অশোকনগর এলাকায় জুয়েলারি বক্স তৈরির সঙ্গে প্রচুর মানুষ যুক্ত। নতুন এই জুয়েলারি হাব চালু হলে সেখানে এই মানুষদের আগে স্থান দেওয়া হবে। তাঁরা সেখানে বসেই তাঁদের এই কুটির শিল্পের কাজ করতে পারবেন। এখন সরকারি অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। পরিদর্শক দল এদিন অশোকনগর হাসপাতাল এলাকাও ঘুরে দেখেন। হাসপাতালের পরিকাঠামোর উন্নয়নের বেশ কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

No comments:

Post a Comment