Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Friday, 29 October 2021

দিনের টুকিটাকি : ‌২৯ অক্টোবর, ২০২১

পুলিশের রক্তদান

বনগাঁ ব্লাড ব্যাঙ্কের রক্তের সংকট মেটাতে কয়েকঘন্টার নোটিশে স্বেচ্ছা রক্তদানের ব্যবস্থা করলো গাইঘাটা থানার পুলিশ। বনগাঁ ব্লাড ব্যাঙ্কের আপতকালীন চাহিদা মিটাতেই এই আয়োজন। দুর্গাপুজো পরবর্তী সময়ে রক্তদান শিবিরের সংখ্যা কমে যাওযায় প্রয়োজনের তুলনায় রক্তের যোগান কমে গিয়েছে। ফলে আগামীদিনে দেখা দিতে পারে রক্তের সংকট। এই অবস্থায় পরিস্থিতি সামাল দিতে জেলা পুলিশের কাছে রক্ত দান শিবিরের আয়োজন করার আবেদন জানায় বনগাঁ ব্লাড ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ। সেই আবেদনে সারা দিয়ে গাইঘাটা থানার  পুলিশ কর্মীরা দ্রুততার সঙ্গে শুক্রবার রক্তদান শিবিরের আয়োজন করে।হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বনগাঁ ব্লাড ব্যাঙ্কে প্রতি সপ্তাহে গড়ে ১৬০ ইউনিট রক্তের প্রয়োজন হয়। উৎসবের সময়ে চাহিদার তুলনায় যোগান কমে যাওয়ায় কিছুটা রক্তের সংকট দেখা দিয়েছে। তাই মুমূর্ষ রোগীদের রক্তের প্রয়োজন মেটাতে নিয়মিত রক্তদান শিবির আয়োজনের আবেদন জানানো হয়। প্রতি সপ্তাহের জন্য ২০০ ইউনিট রক্তের প্রয়োজন মেটাতে কয়েক দিনের মধ্যে অন্তত ৪ থেকে ৫ টি রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা প্রয়োজন বলে ব্লাড ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।



জনতার দরবারে

পুরুলিয়া জেলার একমাত্র মন্ত্রী সন্ধ্যারানী টুডু এখন থেকে ‌পুরুলিয়া শহরে সপ্তাহে দুদিন করে নিজের ব্যক্তিগত দপ্তরে বসবেন। জেলার মানুষের সমস্যা সমাধানে মন্ত্রীর এই সিদ্ধান্ত। এবার থেকে জেলার মানুষের জন্য তিনি আরও বেশি সময় দিতে পারবেন। শুক্রবার শহরের দুলমী নডিহায় নিজের একটি অফিসের উদ্বোধন করে এই ঘোষণা করলেন মন্ত্রী। এদিন তিনি বলেন, নানা সমস্যা নিয়ে তাঁর কাছে জেলার বহু মানুষ আসেন। এবার থেকে সপ্তাহে অন্তত দুদিন তিনি জেলা সদরের এই অফিসে বসে সাধারণ মানুষের মুখোমুখি হয়ে তাদের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবেন। পাশাপাশি, নিজের দপ্তরের মাধ্যমে জেলায় যে সব উন্নয়নমূলক কাজ চলছে, তারও দেখভাল করতে পারবেন তিনি। এদিন মন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর স্বামী পুরুলিয়া জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ তথা জেলা তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি গুরুপদ টুডু সহ জেলা তৃণমূলের পদাধিকারীরা উপস্থিত ছিলেন। 



অটো উল্টে

উত্তর ২৪ পরগনা জেলার গাইঘাটা থানা এলাকার কুলপুকুর কালী মন্দির সংলগ্ন যশোর রোডের উপর একটি অটো নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। ঘটনায় আহত হন ৮ জন যাত্রী। স্থানীয় বাসিন্দাদের তৎপরতায় তড়িঘড়ি আহত যাত্রীদের হাবরা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। গুরুতর আহত চারজনকে কলকাতায় স্থানান্তরিত করা হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, একটি অটো যাত্রী বোঝাই করে হাবরার দিকে আসার পথে কুলপুকুর কালী মন্দির সংলগ্ন এলাকায় উল্টোদিক থেকে আসা একটি দ্রুতগতির ট্রাককে পাশ কাটাতে গিয়ে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। আর তারপরই অটোটি উল্টে যায়। ঘটনায় আহত হন অটোচালক শ্যামল ভদ্র সহ অন্যান্যরা। আহতদের মধ্যে ২ জন মহিলা, ২ জন শিশু এবং ৪ জন পুরুষ।





No comments:

Post a Comment